সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, , ১০ জ্বিলহজ্ব ১৪৪৫

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন অবন্তির মা

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন অবন্তির মা
ছবি- কুমিল্লা মেইল

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ফাইরোজ সাদাত অবন্তিকার আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলার কার্যক্রম নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তার মা তাহমিনা শবনম।তিনি অভিযোগ করে বলেন অদৃশ্য কারণে মামলার কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। এ কারণে দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি চোখে পরছে না। অভিযুক্ত শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর কাজী দীন ইসলাম জামিনে এসে মামলা প্রভাবিত করছেন বলেও তার অভিযোগ। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের তদন্ত কমিটির সাত দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দেয়ার কথা থাকলেও  আড়াই মাসেও তা বাস্তবায়িত হয়নি। সোমবার (৩ জুন) বেলা ১১টায় কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁওয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন অবন্তিকার মা। এ সময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকতাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন অবন্তিকার আত্মহত্যা মামলার বিষয়ে উদাসীন।তাই মেয়ে অবন্তিকার আত্মহত্যায় প্ররোচনায় অভিযুক্তদের বিচার সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কাছে চাইলেন মা তাহমিনা শবনম।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত অবন্তিকার পক্ষের আইনজীবী মাসুদ সালাউদ্দিন বলেন, আইনের যথাযথ ধারায় মামলাটি রেকর্ড হয়নি। মামলাটি এখন ডিপ ফ্রিজে আছে। আমরা চাই মামলাটি যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত হোক। এ মামলার আসামিদেরকে পুনরায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হোক। তিনিও অভিযোগ করেন অন্যতম আসামি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর দীন ইসলাম জামিনে এসে নানাভাবে মামলাকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন।এর আগে, গত ১৫ মার্চ ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে জবির সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম সহপাঠী আম্মান সিদ্দিকীকে দায়ী করে কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও এলাকার নিজ বাসভবনে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। অবন্তিকা ঘটনায়  কোতোয়ালী মডেল থানায় আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়।