সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, , ১০ জ্বিলহজ্ব ১৪৪৫

চান্দিনায় ধর্ষণসহ একাধিক মামলার আসামি যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা

চান্দিনায় ধর্ষণসহ একাধিক মামলার আসামি যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা
ছবি/সংগৃহীত

কুমিল্লার চান্দিনায় একাধিক মামলার আসামি যুবলীগ নেতা তানভীর আহমেদ ভূঁইয়া (৩২)কে ডেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। তবে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর দাবি তাকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে হাতেনাতে ধরে তানভীরকে পিটিয়ে হত্যা করেন তার স্বামী। তবে ওই হত্যাকাণ্ড নিয়েও ধূম্রজাল রয়েছে। মঙ্গলবার (৪ জুন) চান্দিনা উপজেলার বাড়েরা ইউনিয়নের গড়ামারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার (৫ জুন) সকালে গড়ামারা গ্রামের আক্কাস আলীর বাড়ি থেকে নিহত তানভীরের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই গৃহবধূর স্বামী সেলিম মিয়া (৩৫)কে আটক করেছে পুলিশ। নিহত তানভীর আহমেদ ভূঁইয়া একই ইউনিয়নের গনিপুর গ্রামের বাবুল ভূইয়ার ছেলে ও বাড়েরা ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি। তার বিরুদ্ধে চান্দিনা ও তিতাস থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। রাবেয়া নামের এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ জানান, মঙ্গলবার  দিবাগত রাত ২টায় তানভীর তার ঘরে ঢুকে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তার স্বামীর সাথে ধস্তাধস্তি ও মারধরের ঘটনা ঘটে।ক্ষিপ্ত হয়ে  স্বামী তানভীরকে মারধরের পর তানভীর অচেতন হয়ে পড়ে যায়। একপর্যায়ে তার মৃত্যু ঘটে। নিহত তানভীরের মা নিলুফা বেগম জানান, আমার ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতের খাবার খেয়ে আমার ছেলে ঘর থেকে বের হয়ে যায়। রাত ১২টায় তার মোবাইলে ফোন করলে তানভীর আমাদেরকে আসতেছি বলে জানায়। তারপর থেকে আর ফোন রিসিভ করেনি। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ মিথ্যা। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমি ছেলে হত্যার বিচার চাই। এদিকে, নিহত তানভীরের মরদেহ যে জায়গা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সেই স্থানটি অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ। এমন স্থান থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার বা সেলিমের ঘরে তার স্ত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার বিষয়টি নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, এ বাড়িতে প্রায় সবারই টিনের ঘর। একটি ঘর থেকে অপর একটি ঘরের দূরত্ব ৪-৫ ফুটের বেশি নয়। রাতে এমন ধর্ষণের ঘটনা বা মারামারি হয়ে থাকলে আশপাশের লোকজন নিশ্চয়ই টের পেতো। যে কারণে বিষয়টি নিয়ে সবার মাঝেই সন্দেহ তৈরি হয়েছে।

বাড়েরা ইউপি চেয়ারম্যান আহসান হাবিব ভূঁইয়া জানান, আমিও ঘটনাস্থলে গিয়েছি। ঘটনাস্থলটি ঘনবসতিপূর্ণ হওয়ায় ওই বাড়িতে কোনো উঠান নেই। কিভাবে এতো বড় ঘটনা ঘটলো তা প্রশ্নসাপেক্ষ।

 চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) আহাম্মদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। পূর্ব শত্রুতার জেরে এমনটি ঘটতে পারে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে। নিহতের মা বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তবে নিহত তানভীরের বিরুদ্ধে চান্দিনা এবং তিতাস থানায় অস্ত্র ও ধর্ষণসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে তিনি জানান।