সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, , ১০ জ্বিলহজ্ব ১৪৪৫

কুমিল্লায় বিএনপির দু’পক্ষের সংঘর্ষের মামলায় আসামি কারা

কুমিল্লায় বিএনপির দু’পক্ষের সংঘর্ষের মামলায় আসামি কারা
ছবি- সংগৃহীত

কুমিল্লায় বিএনপির দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মহানগর যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক কবির হোসেন বাদী হয়ে সোমবার (৩ জুন) কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এতে দক্ষিণ জেলা যুবদলের সদস্য সচিব ফরিদ উদ্দিন শিবলুকে প্রধান অভিযুক্ত করে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কামরান হোসেন। তবে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িতদের গ্রেফতারের সার্থে পুলিশ আসামিদের নাম না বললেও বাদী পক্ষের সূত্রে জানা গেছে- মহানগর যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম ছোটন, জেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক সাইফুল ইসলাম রনি, ঠাকুরপাড়া বাগানবাড়ি এলাকার রেজওয়ান, দ্বিতীয় মুরাদপুর এলাকার নয়ন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সাগর, উত্তর চর্থা এলাকার আজাদ, চর্থা এলাকার মুরাদসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে আসামি করা হয়েছে। এর আগে রবিবার (২ জুন) দিবাগত রাত পৌনে ১২টায় কুমিল্লার লাকসাম রোডে ঈশ্বর পাঠশালার সামনে মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক উদবাতুল বারী আবু এবং সদস্য সচিব ইউসুফ মোল্লা টিপুর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এসময় ২২নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের আহ্বায়ক ফখরুল ইসলাম তুহিন এবং অন্তর নামে এক যুবক গুলিবিদ্ধ হন। এছাড়াও সংঘর্ষের সবুজ নামে এক ছাত্রদল কর্মীর মাথা ফেটে যায় এবং ৫-৬ জন পথচারী আহত হন। তাদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া
হচ্ছে। সংঘর্ষের পর ঘটনাস্থলের আশপাশের বেশ কয়েকটি সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করেছে পুলিশ। এতে দেখা যায়, মুখে মাস্ক পরা বেশ কয়েকজন যুবক এলোপাথারি গুলি ছুড়ছে ও ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটাচ্ছে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে অস্ত্রধারীদের চিহ্নিত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী মডেল থানার ওসি ফিরোজ হোসেন। তিনি বলেন সংঘর্ষের পর সাথে সাথেই আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সিসিটিভির ক্যামেরার ফুটেজগুলো সংগ্রহ করে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এবং কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতারে মাঠে নেমেছে। অচিরেই তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল (কামরান হোসেন) জানান ঘটনাস্থল থেকে বেশ কিছু ককটেলের খোসা এবং তিন রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় ৮ জনকে আসামি করে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা  হয়েছে।  আসামিদের গ্রেফতারে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।