রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, , ১৮ জ্বিলক্বদ ১৪৪৫

চৌদ্দগ্রামে যুবলীগ নেতা জামাল হত্যায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি গ্রেফতার

চৌদ্দগ্রামে যুবলীগ নেতা জামাল হত্যায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি গ্রেফতার
ছবি- সংগৃহীত

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি জামাল উদ্দিন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।সোমবার (১৩ মে) ভোরে কুমিল্লা নগরীর শাসনগাছা  থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শিলরী গ্রামের মৃত তাজুল ইসলামের ছেলে খন্দকার মফিজুর রহমান ও আলকরা গ্রামের নাসির আহমদের ছেলে রেজাউল করিম বাবুল। সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১১ এর কোম্পানি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মাহমুদুল হাসান।তিনি জানান, ২০১৬ সালের ৮ জানুয়ারি রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পদুয়া এলাকায় যুবলীগ নেতা জামাল উদ্দিনকে প্রকাশ্যে গুলি করে ও জবাই করে  হত্যা করা হয়। রবিবার (১২ মে) কুমিল্লার আদালতে ৯ জনের ফাঁসি ও ৯ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন বিচারক। আসামিরা সবাই পলাতক ছিলেন।রায়ের পরপরই গোয়েন্দা নজরদারির মাধ্যমে আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হয়। মৃত্যুদণ্ড পাওয়া দুই আসামি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। উল্লেখ্য ২০১৬ সালের জানুয়ারি চৌদ্দগ্রাম আলকরা ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি জামাল উদ্দিনকে হত্যা করা হয়। মূলত তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসেন বাচ্চুর চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপকর্মের প্রতিবাদ করায় যুবলীগ নেতা জামাল উদ্দিনের সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে সন্ত্রাসী হামলা হয় জামাল উদ্দিনের ওপর। বিষয়ে তিনি নিজে বাদী হয়ে আদালতে মামলা করেন। মামলার করায় ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন বাচ্চু ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরে ২০১৬ সালের জানুয়ারি রাত ৮টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামের পদুয়া এলাকায় সড়কের ওপর চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসেন বাচ্চুর নেতৃত্বে অন্য আসামিরা গুলি করে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনায় নিহত জামালের বড় বোন জোহরা আক্তার বাদী হয়ে ২৩ জনকে আসামি করে মামলা করেন। মামলায় ২০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রবিবার (১২মে) জনের মৃত্যুদণ্ড জনের যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছেন আদাত। আর মামলা থেকে খালাস পেয়েছেন জন।